Alipurduar News – কামাক্ষ্যাগুরি বাসস্ট্যান্ডে উচ্চমাধ্যমিক এ ফেল করা স্টুডেন্টদের পথ অবরোধ ?

তত্র সূত্রে জানা যাচ্ছে যে আজ সমস্ত ক্লাস টুয়েলভে ছাত্রছাত্রীরা যারা উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় ফেল করেছে সেই সব ছাত্র-ছাত্রীরা কামাখ্যাগুড়ি বাস স্ট্যান্ড এ পথ অবরোধ করতে নেমেছে।

তাদের কথামতো তারা ঠিকঠাকভাবে পরীক্ষা দিয়েছে কিন্তু স্যার রা তাদের নাম্বার কম দিয়েছে । এর জন্য কামাখ্যাগুড়ি গালস স্কুল ও হাই স্কুল এর ছাত্র ছাত্রীরা তাদের পাস করিয়ে দেবার দাবিতে পথ অবরোধ করতে নেমেছে।

বন্ধুরা গত এপ্রিল মাসের দিকে উচ্চমাধ্যমিকের পরীক্ষা হয়েছিল। পরীক্ষা হওয়ার পর থেকেই ছাত্রছাত্রীরা তাদের রেজাল্ট আশায় অনেকদিন ধরে অপেক্ষা করেছিল। ফাইনালি 10 তারিখ উচ্চ মাধ্যমিকের রেজাল্ট প্রকাশিত করা হয়। সকল ছাত্র ছাত্রীরা তাদের রেজাল্ট অনলাইনের মাধ্যমে দেখে নেয়। কিন্তু এমন অনেক ছাত্রছাত্রী রয়েছেন যারা পরীক্ষায় ফেল করেছে। যারা পরীক্ষায় ফেল করেছে তাদের রেজাল্ট গুলো অনলাইনে শো করছে না। তাতেই বোঝা যায় যে সেই সব ছাত্ররা ফেল করেছেন।

সুতরাং অনেক ছাত্র ছাত্রীদের মুখে এটা শোনা যায় যে তারা ঠিকঠাক ভাবে পরীক্ষা দিলেও তাদের নাম্বার দেওয়া হয়নি। তাই তারা ফেল করেছে।

 

বর্তমানে আজ শনিবার কামাখ্যাগুড়ি বাসস্ট্যান্ডে গালস স্কুল ও হাই স্কুল এর ছাত্র ছাত্রীরা মিলে পথ অবরোধ করতে নেমে গেছে। তাদের কথামতো তাদের দাবি মানতে হবে নইলে তারাপদ অবরোধ বন্ধ করবে না। তাদের মতে তাদের পরীক্ষায় ঠিকঠাকমতো নাম্বার দেওয়া হয়নি। স্যারেরা ইচ্ছে করে তাদের নাম্বার কম দিয়েছে। এর জন্যই তারা পথ অবরোধ করতে নেমেছে।

সমস্ত ছাত্র-ছাত্রীরা প্রথমে তাদের নিজেদের স্কুলে যায় এবং স্যার ও মেম দের সাথে কথা বলে। তারা স্যারদের সাথে কথা বলে এবং সার রা জানায় তারা এখন কিছু করতে পারবে না। স্কুল ছাত্র ছাত্রীরা যা ইচ্ছা তাই করতে পারে। অর্থাৎ এই কারণেই ছাত্রছাত্রীরা স্যারদের উপর ক্ষেপে গিয়ে তারা পথ অবরোধ করতে নেমে যায়।

ছাত্র-ছাত্রীরা ম্যাক্সিমাম এক থেকে দুই ঘন্টা বাসস্ট্যান্ডে 1 থেকে 2 ঘন্টা ধরনায় বসে থাকে কিন্তু তাতে কোন লাভ হয় না। এক ছাত্রের মুখে শোনা যায় যে পুলিশরা তাদের বলে ছাত্র-ছাত্রীরা যাতে বিডিওতে গিয়ে কমপ্লেন করে। অর্থাৎ তারা যেন পথ অবরোধ বাদ দিয়ে বিডিওতে যায়। কিন্তু ছাত্রছাত্রীরা তাদের কথা না শুনে পথ অবরোধ করতে নেমে যায়।

কিছুক্ষণ পথ অবরোধ চলার পর পরেই সকল ছাত্র-ছাত্রীদের নিজেদের বাড়ি চলে যায়।

আজকে শুধু কামাখ্যাগুড়ি তো নয় সমস্ত জায়গায় জায়গায় ছাত্র ছাত্রীরা পথ অবরোধ করে। শুধু কামাখ্যাগুরি তে না তুফানগঞ্জ এলাকাতেও বিভিন্ন স্কুলে এর ছাত্র ছাত্রীরা পথ অবরোধ করে।

 

অনেকেই এই নিয়ে ফেসবুকে ও হোয়াটসঅ্যাপে নানান ধরনের সমালোচনা করছেন। অনেকেই এই নিয়ে মন্তব্য করেছেন যে “সারা বছর পড়াশোনা না করে ফোন নিয়ে ব্যস্ত থাকলে পরীক্ষায় ফেল করবেই।” অনেকে আবার এটা বলেছেন ” রাজ্য সরকারের দেওয়া 10 হাজার টাকায় স্মার্টফোন কিনে পড়াশোনার উন্নতি হয়েছে” আবার এও বলতে সোনা গেছে যে ” পরীক্ষায় ফেল করার পর মানুষেরা বাড়ি থেকে বেরোতে লজ্জা পায় কিন্তু এরা পথ অবরোধ করতে নেমে গেছে তাহলে কতটা এগিয়ে গেছে দেশ ভাবা যায়” অনেকেই অনেক রকমের মন্তব্য করেছেন।

Leave a Comment

You cannot copy content of this page